community-bank-bangladesh
Amar Sangbad
ঢাকা সোমবার, ২৪ জুন, ২০২৪,

‍‍‘বুলবুল‍’ কৃতিত্বে চুরি-ছিনতাই হওয়া ১১০ মোবাইল উদ্ধার

মিরাজ আহমেদ

মিরাজ আহমেদ

মার্চ ১৬, ২০২৩, ০৫:০৮ পিএম


‍‍‘বুলবুল‍’ কৃতিত্বে চুরি-ছিনতাই হওয়া  ১১০ মোবাইল উদ্ধার

মাগুরা পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহায়তায় হারানো, ছিনতাই ও চুরি হওয়া ১১০টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে।

মাগুরা সাইবার ক্রাইম ইউনিটে কর্মরত এএসআই শ্রী বুলবুল‍‍` কুমার অধিকারী ১৫ই মার্চ সকালে দৈনিক আমার সংবাদ এর সাক্ষাৎ কারে জানান,চলতি বছরে মোবাইল ফোন উদ্ধারে প্রযুক্তিগত সহায়তায় উদ্ধার দ্রুত সম্ভব হয়েছে। সাইবার ইউনিটের এসব সাফল্যের কারণে লোকজনের হারানো,ছিনতাই হওয়া অথবা ডাকাতির মাধ্যমে খোয়ানো মোবাইল ফোন পেতে মাগুরা জেলার ৪টি থানাতে একাধিক সাধারণ ডায়েরি রেকর্ডভুক্ত হয়েছে, এবং এগুলি উদ্ধারের চেষ্টায় প্রতিনিয়ত কাজ করছেন মাগুরা জেলা পুলিশের একটি চৌকস টিম।

নিশ্চিত তথ্যসূত্রে জানা গেছে, থানাগুলো মোবাইল ফোন উদ্ধারে সহায়তার জন্য জিডির তথ্য সাইবার ইউনিটে পাঠিয়েছেন।মাগুরা জেলা সাইবার ইউনিট আগে ও পরে হলেও প্রতিটা অভিযোগের সুরাহা করছেন। যেমন ৭/১১/২২ মাগুরা সদর থানা জিডি নাম্বার ২৪০ তথ্য সূত্রে মোবাইল এর মালিক আব্দুল মতিনের হাতে তার মোবাইল তুলে দেন মাগুরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) গৌতম ঠাকুর। দীর্ঘ চার বছরের জিডি মূলে হারানো মোবাইল উদ্ধার করে ফেরত দেয়া হয়েছে মেহেদী হাসান কে। ৭/১১/২২ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে কনস্টেবল জয় বিশ্বাসের দায়ের করা জিডি নাম্বার ৪৪৮ ভিত্তিতে হোয়াই মোবাইল উদ্ধার করে জয় বিশ্বাসের হাতে তুলে দেন মাগুরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মুস্তাফিজুর রহমান। মাগুরা সদর থানার বাহরবাগ গ্রাম থেকে কৃষকের টলিসহ ট্রাক্টর চুরি হয় এরপর তথ্যপ্রযুক্তি সহায়তায় এএসআই বুলবুলের তৎপরতায় ট্রাক্টর টি উদ্ধার করে মালিক পক্ষের কাছে তুলে দেয়া হয় মাগুরা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কালিমুল্লার সমন্বয়ে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. কালিমুল্লাহ (ক্রাইম এন্ড অফস্) এবং নাজিম উদ্দিন আল আজাদ পিপিএম মাগুরা সদর সার্কেল এর দিক নির্দেশনায় মাগুরা সদর থানায় জিডি নাম্বার ১৫৬০,২৭/৮/২২ মোবাইলের প্রকৃত মালিক ফয়সাল আহমেদের মোবাইল রাতে উদ্ধার করে তার মোবাইলটি ফেরত দেয়া হয়। এ ছাড়াও জিডি নাম্বার ১২৮৯ মূলে গত ২১/৭/২২ মোবাইলটির প্রকৃত মালিক সালমানের নিকট বুঝে দেন মোবাইল। এ সময় দুটি অভিযানে দুইটি মোবাইল  উদ্ধার করে ফেরত দেয়া হয় তার মালিকের কাছে।

এ ছাড়া গত ১৪ই মার্চ ২০২৩ দৈনিক আমার সংবাদের মফস্বল এডিটর সাংবাদিক হাবিবুর রহমান মহব্বত এর মাগুরা জেলার নাকোল গ্রামের বাসভবন থেকে নিজের ব্যবহারিত অপ্পো ফোনটি চুরি হলে মাগুরা শ্রীপুর থানায় জিডি অনুযায়ী মাত্র দুইদিনের মধ্যে বরিশাল থেকে গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টসধারী এই ফোনটি উদ্ধার করা হলে রীতিমত গণমাধ্যমে ব্যাপক ভাইরালিটি অর্জন করেন এএসআই শ্রী বুলবুল অধিকারী।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ওয়ালটন কোম্পানির কাটুনসহ হারিয়ে যাওয়া ১০ (দশ) টি বিভিন্ন মডেলের মোবাইল যার আনুমানিক মূল্য ১৫০০০০/ (এক লক্ষ পঞ্চাশ) টাকা ! বিশেষ অভিযান পরিচালনায় জিডি মূলে উদ্ধার পূর্বক ওয়ালটন কোম্পানির ব্রাঞ্চ ম্যানেজারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে ।

মাগুরা জেলা পুলিশ তথ্যসূত্রে জানা গেছে  গত১৮ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রি:মাগুরা সদর থানা পুলিশ কর্তৃক ২১ টি হারানো মোবাইল উদ্ধার ও হস্তান্তর করা হয়।

এ জেলার পুলিশ সুপার মোঃ মশিউদ্দৌলা রেজা,পিপিএম-সেবা(বার)দিক নির্দেশনায়,মাগুরা পুশ পুল এর সার্বিক সহযোগীতায় ও মাগুরা সদর থানার সুযোগ্য অফিসার ইনচার্জ জনাব মোহাঃ মোস্তাফিজুর রহমান এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে মাগুরা সদর থানা পুলিশ কর্তৃক ২১ টি হারানো মোবাইল উদ্ধার পূর্বক মাননীয় পুলিশ সুপার, মাগুরার মাধ্যমে প্রকৃত মালিকদের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। হারিয়ে যাওয়া মোবাইল উদ্ধার কৃতিত্বে রয়েছেন এএসআই শ্রী বুলবুল অধিকারী।

হারিয়ে যাওয়া মোবাইল ফেরত পেয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ইমাম গণমাধ্যমে সাক্ষাৎকারে বলেন,আমি একটি মসজিদের ইমাম! আমার দায়িত্ব আমার মসজিদের সকল মুসল্লীকে নামাজের জন্য দাওয়াত দেওয়া আর সকলকে নিয়ে নামাজ আদায় করা সেই সঙ্গে মসজিদের দেখভাল করা হঠাৎ একদিন নামাজ আদায় শেষে রুমে ফিরে দেখি আমার মোবাইল যথা স্থানে নেই ! অনেক খোঁজাখুঁজি করে,না পেয়ে চরম হতাশা বোধকরি। এরপর আইন অনুযায়ী থানায় জিডি করে এএসআই বুলবুল অধিকারীর সঙ্গে দেখা করে হাউমাউ করে কেঁদে ফেলি,আর বলতে থাকি স্যার অল্প বেতনে চাকরি করি আমি। তার মধ্যে দিয়ে এই টার্চ ফোন শখের বসে খরিদ করেছিলাম যাতে অবসর সময়ে ওয়াজ বা ধর্মীয় কিছু শোনার জন্য কিন্তু তা আর হলো না। যাক স্যার আপনি অনেকের ই মোবাইল উদ্ধার করে দিয়েছেন তাই আপনার নিকট আমার জোর অনুরোধ আমার মোবাইল টা উদ্ধার করে দিন । তাহলে অনেক বড় উপকার হবে আর আমি আপনার জন্য প্রাণ খুলে দোয়া করবো।এরপর আড়াইদিনের মাথায় আমার মোবাইল উদ্ধার কোরে আমাকে ঢেকে এনে মোবাইল ফেরত দেন,আমি অনেক খুশি হয়েছি তার উপর। তিনি এ সময় আরো বলেন," স্যার আপনার জন্য আমি সব সময় দোয়া করবো"

মাগুরা জেলা পুলিশের একাধিক থানা সহ বিভিন্ন শাখা থেকে নিশ্চিত তথ্যে জানা গেছে জিডি নং১৫৯,১৫৪০, ৬৫৯,১৮৫৬, ৮৫৩, মুলে উক্ত মালিকদের কাছে তাদের হারানো ফোন উদ্ধার করে ফেরত দেয়া হয়েছে।  আর এ সকল হারানো ফোন উদ্ধারের নৈপত্রের নায়কে রয়েছেন এএসআই শ্রী বুলবুল অধিকারী তিনি তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে এ সকল গুরুত্বপূর্ণ জিনিস উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

এ নিউজ প্রতিবেদন চলমান কালীন, হারানো মোবাইল উদ্ধারের পর তাদের সাক্ষাৎকারে তারা জানিয়েছেন পার্শ্ববর্তী জেলাগুলিতে ও পুলিশ কর্তৃপক্ষ সাইবার ইউনিটের প্রযুক্তি সহায়তা বৃদ্ধি চান ফেরত পাওয়া মোবাইলের ভুক্তভোগীরা।

মাগুরা জেলা পুলিশ সদস্য বুলবুল, গণমাধ্যমের এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন,কারো মোবাইল ফোন হারানো গেলে অথবা চুরি বা ছিনতাই হলে তারা যেন সংশ্লিষ্ট থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। সেক্ষেত্রে দুদিন আগে হোক বা পরে হোক মোবাইল ফোনটি উদ্ধারের সম্ভাবনা রয়েছে। আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল  থাকার ও জানান তিনি।

আরএস

 

Link copied!