Amar Sangbad
ঢাকা শনিবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২৪,

জাবির সাবেক উপাচার্য

‍‍`আমি কি এতোই খারাপ ছিলাম?‍‍`

জাবি প্রতিনিধি

জাবি প্রতিনিধি

জানুয়ারি ২৫, ২০২৩, ০৩:২৯ পিএম


‍‍`আমি কি এতোই খারাপ ছিলাম?‍‍`

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম বলেছেন, ‘আমার সময় কেন এতো আন্দোলন হলো? উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনে নির্বাচিত হয়ে উপাচার্য হিসেবে আমার অভিষেক অনুষ্ঠানের দিন কেন গুলি ফুটানো হলো? সেসময় আমার কি দোষ ছিল। আমি কি এতোই খারাপ ছিলাম?

আজ শিক্ষক সমিতি নির্বাচনে বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবে ভোট প্রদান শেষে সাংবাদিকদের সাথে এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন তিনি।

আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ষষ্ঠ সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, এবিষয়ে সাবেক এই উপাচার্যের বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সমাবর্তন প্রতি বছর হওয়া উচিত। আমি এর আগেও এটা বলেছি। কিন্তু আমার সময় বিশ্ববিদ্যালয় জুড়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ ছিলো। কেউ আমাকে প্রোটেক্ট করেনি। প্রো-ভিসিরাও আমাকে প্রোটেক্ট করেনি,  প্রক্টরও আমাকে প্রোটেক্ট করেনি৷  এতো আন্দোলন তখন কেন হয়েছে? এখন এক বেলা আন্দোলন হয় না। এটার কারণ সাংবাদিকেরা বের করতে পারলে তারা সার্থক হবে।’

সে সময়ে  প্রক্টর ফিরোজ-উল-হাসানের ভূমিকা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘সেসময় প্রক্টর আমাকে সেভ (রক্ষা) করেনি৷ কিন্তু কারেন্ট এডমিনিস্ট্রেশন (বর্তমান প্রশাসনকে) সেভ করে যাচ্ছে। এই ভিসি কিভাবে এসেছে? তার প্রো-ভিসি হওয়ার সময় কি আমি তার জন্য সুপারিশ করি নাই?

ফারজানা ইসলাম আরও বলেন, ‘ইতিহাস অন্যরকম, এখন আমি সেই ইতিহাস লিখছি।  লিখে বস্তাবন্দী করে এমন জায়গায় রাখবো যাতে কেউ না জানে। আমার জীবদ্দশায় এই ইতিহাস প্রকাশ হবে না। এগুলো বের হলে এরা আমাকে তো মারবেই আমার ছেলেকেও মারবে।’

উন্নয়ন প্রকল্পের ২কোটি টাকার দুর্নীতির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ‘যে টাকা ছাড় হয়নি সেটা আমি কিভাবে খরচ করে ফেললাম? এটা বলা ঠিক না। এটা যদি আমার সময়ে কেউ করে থাকে কাউকে খুশি করতে এর দায়-দায়িত্ব আমি নিবো না।’

উল্লেখ্য,  ২০১৪ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনে সর্বোচ্চ সংখ্যক ভোট পান অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম। এরপর ২মার্চ  বিশ্ববিদ্যালয়ের আাচার্য ও  রাষ্ট্রপতির আদেশে দেশের প্রথম নারী উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পান তিনি। প্রথম মেয়াদে দায়িত্ব পালনের পর ২০১৮ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি আচার্যের নির্বাহী আদেশে দ্বিতীয় মেয়াদে নিয়োগ পান ফারজানা ইসলাম। গত বছরের ১ মার্চ তার মেয়াদ শেষ হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) ও বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক মো. নূরুল আলমকে উপাচার্যের রুটিন দায়িত্ব দেওয়া হয়।

আরএস

Link copied!