Amar Sangbad
ঢাকা রবিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৯ আশ্বিন ১৪২৯

বিশ্বের চতুর্থ রোগী এইচআইভিমুক্ত হলেন

নিজস্ব প্রতিবেদক

জুলাই ২৯, ২০২২, ০৩:১৯ পিএম


বিশ্বের চতুর্থ রোগী এইচআইভিমুক্ত হলেন

১৯৮০ এর দশক থেকে এইচআইভি আক্রান্ত এক ব্যক্তি সম্পূর্ণ সুস্থ্ হয়েছেন। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তিনি বিশ্বের মাত্র চতুর্থতম ব্যক্তি যার শরীর থেকে এই ভাইরাস নির্মূল হয়েছে। 

বিবিসি জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র্রের ক্যালিফোর্নিয়ার ওই রোগী এইচআইভি ভাইরাস থেকে মুক্ত হয়েছেন। ব্লাড ক্যান্সার লিউকেমিয়ার চিকিৎসার জন্য তার বোন ম্যারো ট্রাসপ্ল্যান্ট করা হয়েছিল।

প্রাকৃতিকভাবে এইচআইভিপ্রতিরোধী একজন দাতার বোন ম্যারো ওই রোগীর শরীরে ট্রান্সপ্ল্যান্ট করা হয়েছিল।

সুস্থ হয়ে ওঠা ৬৬ বছর বয়সী ওই রোগীর অবশ্য পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি। বর্তমানে ওই ব্যক্তি এইচআইভির ওষুধ খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ভাইরাসটি তার শরীরে আর না থাকায় অনেক খুশি হয়েছেন।

তিনি জানিয়েছেন, এমন দিন দেখতে পারব, এটা কখনো চিন্তা করতেও পারিনি। অন্য অনেকের মতো ১৯৮৮ সালে আমার এইচআইভি ধরা পড়ার পর আমি ভেবেছিলাম- এটি মৃত্যুদণ্ড।

আমি কখনই ভাবিনি, আমার শরীরে এইচআইভি আর থাকবে না এবং আমি সেই দিনটি দেখার জন্য বেঁচে থাকব।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ওই রোগীকে থেরাপি দেওয়া হয়েছিল। তবে তা এইচআইভির জন্য নয়। ৬৩ বছর বয়সে তার ব্ল্যাড ক্যান্সার ধরা পড়ে।

পরে তার মেডিকেল টিম ক্যান্সারযুক্ত রক্তকণিকা প্রতিস্থাপনের জন্য বোন ম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্টের সিদ্ধান্ত নেয়। কাকতালীয়ভাবে একজন দাতা পাওয়া যায়; যিনি প্রাকৃতিকভাবেই এইচআইভিপ্রতিরোধী ছিলেন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার ডুয়ার্টের যে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছিল সেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে ‘সিটি অব হোপ’ বা ‘আশার শহরের’ রোগী হিসাবে অভিহিত করেছে। অ্যান্টিরেট্রোভাইরাল সব ওষুধ প্রায় স্বাভাবিক জীবন দিতে পারার আগে ওই ব্যক্তির অনেক বন্ধু এইচআইভিতে মারা গেছেন।

এর আগে ২০১১ সালে বিশ্বে প্রথম ব্যক্তি হিসেবে জার্মানির টিমোথি রে ব্রাউন নামের এক রোগী এইচআইভি মুক্ত হয়েছিলেন। এরপর গত তিন বছরে বিশ্বে আরো তিনজন এই ভাইরাস থেকে মুক্তি পেলেন।
সূত্র: বিবিসি।


আমারসংবাদ/টিএইচ

Link copied!