Amar Sangbad
ঢাকা রবিবার, ০৩ মার্চ, ২০২৪,

যৌতুকের কারণে স্ত্রীকে নির্যাতনের মামলায় জেলহাজতে পল্লি চিকিৎসক

লালমোহন (ভোলা) প্রতিনিধি

লালমোহন (ভোলা) প্রতিনিধি

ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২৪, ০৭:১৯ পিএম


যৌতুকের কারণে স্ত্রীকে নির্যাতনের মামলায় জেলহাজতে পল্লি চিকিৎসক

ভোলার লালমোহনে যৌতুকের কারণে স্ত্রীকে নির্যাতনের মামলায় জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে এক পল্লি চিকিৎসককে। উপজেলার লর্ডহার্ডিঞ্জ নতুন বাজারের ঔষধের দোকানদার মো. রাছেল এর বিরুদ্ধে ৪ ফেব্রুয়ারি লালমোহন থানায় মামলা দায়ের করে তার স্ত্রী জানা-ই কাজরীলতা রত্না। 

স্ত্রীকে নির্যাতন ও যৌতুক দাবি করায় রত্না এই মামলা করেন। মামলায় স্বামী রাছেলের বাবা মো. শাজাহান, ভাই রাফেজসহ আরো দুজনকে বিবাদী করা হয়েছে। মামলার পর লালমোহন থানা পুলিশ রাছেলকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করলে জেল হাজতে পাঠানো হয়। এছাড়া আদালতে হাজির হতে গেলে রাছেলের বাবা ও ভাইকেও জেল হাজতে পাঠানো হয়। 

জানা গেছে, লালমোহন পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের মো. কাজল মিয়ার মেয়ে রত্নাকে ২০১৮ সালে লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের শাহজাহানের ছেলে রাছেলের সাথে বিয়ে দেওয়া হয়। বিয়ের পর তাদের রুহি নামে এক সন্তানও জন্ম নেয়। কিন্তু রাছেল পরবর্তীতে তার বাবা ও ছোট ভাইয়ের প্ররোচনায় রত্নার মায়ের নামে পৌরসভায় থাকা ভিটা রাছেলের নামে লিখে নিতে চাপ প্রয়োগ করে। 

এতে রাজী না হলে রত্নার উপর নির্যাতন শুরু হয়। রাছেল মোবাইল ফোনে বিভিন্ন নারীদের সাথে আপত্তিকর কথোপকথন চালিয়ে আসছে বলেও রত্না অভিযোগ করে। এসব কথোপকথনের স্ক্রীণসর্ট ও বিভিন্ন নারীদের সাথে ছবি রাছেলের মোবাইল ফোন থেকে উদ্ধার করে রত্না। যার কারণে রত্নাকে গত ৩ বছর ধরে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছে রাছেল। 

অভিযুক্ত রাছেল গরম পানি দিয়েও ঝলসে দেয় রত্নার হাত। এই নির্যাতনে জখম হয়ে কয়েকদফা লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয় রত্না। নির্যাতনের কারণে রত্না শিশু কন্যাকে নিয়ে তার বাবার বাড়ি চলে আসলে রাছেল গত ৩ ফেব্রুয়ারি এসে ঝগড়া সৃস্টি করে। এক পর্যায়ে রত্নাকে মারপিট করে রাছেল। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করে রত্না। 

এইচআর

Link copied!