community-bank-bangladesh
Amar Sangbad
ঢাকা সোমবার, ১৭ জুন, ২০২৪,

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

লৌহজংয়ে ভোটের মাঠে চলছে দ্বিমুখী লড়াই

লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি:

লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি:

মে ১৯, ২০২৪, ১২:০৭ পিএম


লৌহজংয়ে ভোটের মাঠে চলছে দ্বিমুখী লড়াই

আসন্ন ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ২য় ধাপে লৌহজংয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ২১ মে। শেষ মুহূর্তের প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত রয়েছেন প্রার্থীরা। লৌহজং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী তিনজন থাকলেও দুজন প্রার্থীর মধ্যে চলছে দ্বিমুখী লড়াই।

চেয়ারম্যান প্রার্থী তিনজন বিএম শোয়েব দোয়াত কলম প্রতীক, আব্দুর রশিদ শিকদার কাপ পিরিচ প্রতীক ও একমাত্র মহিলা প্রার্থী লাকি মল্লিক আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। তবে ভোটের মাঠে উত্তাপ ছড়াচ্ছে দোয়াত কলম ও কাপ পিরিচ প্রতীক। দু’জন প্রার্থীর সমর্থক সমান তালে চালিয়ে যাচ্ছে প্রচার প্রচারণা।

বিভিন্ন চায়ের দোকানে উত্তাপ ছড়াচ্ছে এই নির্বাচন। হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে যাচ্ছে এবার ভোটের মাঠে। তবে সাধারণ মানুষের মুখে ভেসে বেড়াচ্ছে দোয়াত কলম প্রতীকের ভোটের মাঠ ভালো। সাধারণ ভোটারের জরিপে এগিয়ে রয়েছেন দোয়াত কলম প্রতীকের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী বিএম শোয়েব। তবে পিছিয়ে নেই কাপ পিরিচ প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী রশীদ শিকদার। তিনি ভালো অবস্থানে রয়েছেন হলদিয়া ইউনিয়নে।

জরিপে দেখা যায় হলদিয়ার এ্যবা গ্রুপ ও ডাচ ডেইরি লিমিটেডের চেয়ারম্যান সাজ্জাদুর রহমান মৃধা শিপন রশিদ শিকদারের সমর্থনে হলদিয়া এসেছে গণজোয়ার। কলমা হতে মেদিনী মন্ডল, লৌহজংয়ে ১০টি ইউনিয়নের মধ্যে হলদিয়া ইউনিয়নে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে রয়েছে কাপ পিরিচ প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী রশিদ শিকদার। তবে অন্যান্য ইউনিয়নেও সহাবস্থান বিরাজ করছে, আসল ফলাফল তো পাওয়া যাবে ভোটের দিন। তবে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে নির্বাচন হতে যাচ্ছে তা অনুমেয়।

এদিকে বেশ কয়েকবার হামলার স্বীকার হয়েছে দোয়াত কলম প্রতীকের সমর্থকেরা। সর্বপ্রথম হামলার স্বীকার হয় কাপ পিরিচ প্রতীকের ইউনিয়ন বৌলতলীতে। তারপর গাঁওদিয়া ইউনিয়ন বড় হামলার স্বীকার হোন দোয়াত কলম প্রতীকের সমর্থকেরা, গুরুতর আহত ৫ জনসহ মোট ২১ জন আহত হয়। মামলাও হয়। কয়েকটি হামলা হওয়াতে আতঙ্ক বিরাজ করছে ভোটারদের মাঝে।

লৌহজংয়ে ১০ টি ইউনিয়ন ঘুরে বেশ কয়েকজনের মত নিয়েছি৷ সাধারণ ভোটার আবদুল আজিজ, আলামিন, বিল্লাল হোসেন, তন্ময় হোসেন, রাব্বী আল মামুন প্রমূখদের সাথে কথা হলে তারা জানান, আমরা শান্তি, সুশৃঙ্খলভাবে নিজের ভোট নিজে দিতে চাই। আমরা চাইনা কোনো হানাহানি। সুন্দর মতে ভোট হবে আমরা ভোট দিবো, ভোটে যে পাশ করে। তবে আমরা যাচাই বাছাই করেই দিবো। অবশ্যই একজন ভালো ও দক্ষ লোককেই ভোট দিবো। আমরা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলতাছি আপনারা আমাদের ভোট দেওয়ার সুযোগ করে দিবেন। আমরা কোনো অরাজকতা চাইনা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ( ইউএনও) ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা মো জাকির হোসেনের সাথে কথা হলে তিনি জানান, উপজেলা পরিষদ নির্বাচন হবে সুন্দর, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ। কোনো অরাজকতার প্রশ্নই উঠেনা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ যার ভোট তাকে প্রয়োগ করার সুযোগ করে দিতে হবে। আমি এই উপজেলায় বিগত দিনের উপজেলা নির্বাচনের চাইতে শ্রেষ্ঠ নির্বাচন উপহার দিতে চাই।

বিআরইউ

Link copied!