Amar Sangbad
ঢাকা বুধবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

উপাচার্য নিয়োগই বিশ্ববিদ্যালয়ের বারোটা বাজানোর প্রথম ধাপ: আনু মুহাম্মদ

গবি প্রতিনিধি

গবি প্রতিনিধি

নভেম্বর ১৯, ২০২২, ০৭:১৭ পিএম


উপাচার্য নিয়োগই বিশ্ববিদ্যালয়ের বারোটা বাজানোর প্রথম ধাপ: আনু মুহাম্মদ

জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানগুলোতে উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পেতে এমপি থেকে শুরু করে প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত তোয়াজ করা হয়। এই উপাচার্য নিয়োগই হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বারোটা বাজানোর প্রথম ধাপ। এমন একজন লোককে নিয়োগ দেওয়া হবে, যে লোক যেটা প্রসন্নময় সেটিকে গ্রহণ করবেন। সরকারের বাধ্যবাধকতা বা আনুগত্যই হবে তার প্রধান পরিচয়।

শনিবার (১৯ নভেম্বর) সকালে ধানমন্ডির গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালের বীর উত্তম মেজর হায়দার মিলনায়তনে  অনুষ্ঠিত ‘বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা এবং শিক্ষক’ শীর্ষক এক সেমিনারে বক্তব্যকালে তিনি এসব কথা বলেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলো একটি নির্যাতনের কারখানা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, কোন শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে ঠিকমতো পড়াশোনা করতে পারে না। কেননা তারা যেসব হলে থাকে সবগুলো সরকারী ছাত্র সংগঠনের অধীনে চলে যায়। এ দলগুলো যারা চালায় তাদের কথামতো না চললে শিক্ষার্থীদের উপর চলে অমানবিক নির্যাতন। সেখানে হল প্রশাসনের যেসব শিক্ষক আছেন তারা সম্পূর্ণ নিরব ও নিষ্ক্রিয় থাকে।

শিক্ষাবিদ অধ্যাপক আবুল কাসেম ফজলুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের শিক্ষক রাহমান চৌধুরী।

মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে অধ্যাপক রাহমান চৌধুরী বলেন, এক সময় বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে গ্রামের মেধাবী ছেলেরা খুব সহজে পড়তে পারত। এখন সে জায়গাগুলো ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো মালিকপক্ষ, উপচার্যদের, প্রশাসনের কর্তৃত্ব করার জায়াগা।

তিনি বলেন, সে সময় মুখস্থ বিদ্যা ছিল তবে তারা ভালোও করতেন। কারণ, সে মানের শিক্ষকও ছিল। তারা সেরকম গাইডলাইন দিতেন। বর্তমানে তার কিছুই দেখছি না।

এতে আরও বক্তব্য দেন হামদর্দ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য তানভীর আহমেদ খান, নিউএজ পত্রিকার সম্পাদক নুরুল কবীর, চিকিৎসক আবদুন নূর তুষার প্রমুখ।

কেএস 

Link copied!