Amar Sangbad
ঢাকা সোমবার, ০৪ মার্চ, ২০২৪,

কুষ্টিয়ায় বেড়েই চলছে পেঁয়াজের ঝাঁজ

নজরুল ইসলাম মুকুল, কুষ্টিয়া

নজরুল ইসলাম মুকুল, কুষ্টিয়া

ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২৪, ০২:৪৬ পিএম


কুষ্টিয়ায় বেড়েই চলছে পেঁয়াজের ঝাঁজ
ছবি: আমার সংবাদ

রমজানকে সামনে রেখে কুষ্টিয়ায় নতুন পেঁয়াজ না ওঠার অজুহাতে প্রতিনিয়তই মুড়িকাটা পেঁয়াজের দাম বাড়ছে। গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে বাজারে প্রতি কেজিতে ৬০ টাকা বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। গত এক সপ্তাহ আগেও যা খুচরা মূল্যে বিক্রি করা হয়েছে ১০০ থেকে ১১০ টাকায়।

শনিবার ওই পেঁয়াজ পাইকারি বাজারে বেড়ে ১২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। যা খুচরা বাজারে ১৪০ টাকা কেজি। ভোক্তারা বাজারে এসে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি দেখে হতাশ হচ্ছেন।

কুষ্টিয়া পৌরবাজারের ব্যবসায়ীরা জানান, মূলকাটা পেঁয়াজ শেষের দিকে হওয়ায় দাম কিছুটা বেড়েছে। মাঠ থেকে চারা পেঁয়াজ উঠে আসলেই দাম কমে যাবে। বাজার নিয়ন্ত্রণে না থাকায় কতিপয় ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি করে চলেছে। স্থানীয় প্রশাসন ওই সব সিন্ডিকেটের কাছে জিম্মি হয়ে আছে বলে অভিযোগ করছেন ভোক্তারা। পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধির ফলে নিম্ন ও মধ্যবিত্ত আয়ের মানুষেরা পড়েছে বেকায়দায়।

খুচরা ব্যবসায়ী ফয়েজ উদ্দিন বলেন, গত সপ্তাহে যে পেঁয়াজ পাইকারি বাজার থেকে ৬০-৭০ টাকায় কিনেছি ওই বাজারেই আজ ১৩০ টাকা কেজি পেঁয়াজ কিনতে হলো। আমরা এই পেঁয়াজ ১৩৫ থেকে ১৪০ টাকা খুচরা বিক্রি করছি। আমরা যে দামে খরিদ করছি সামান্য লাভে তা বিক্রি করছি। তবে আর অল্প কিছু দিনের মধ্যেই পেঁয়াজের দাম কমে যাবে।

ফরিদ উদ্দিন নামের অপর এক খুচরা ব্যবসায়ী বলেন, পেঁয়াজের যে হারে দাম বাড়ছে আমি অতীতে এমন দাম বাড়তে দেখিনি। প্রশাসনের নজর না থাকায় পাইকারি ব্যবসায়ীরা তাদের ইচ্ছেমতো দাম বৃদ্ধি করে চলেছে। নানা অজুহাত দেখিয়ে পাইকারি ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধি করলেও প্রশাসন নীরব রয়েছে।

আব্দুল আলিম নামের এক ভোক্তা কুষ্টিয়া পৌর বাজারে পেঁয়াজ কিনতে এসে হতাশ হয়ে আমার সংবাদকে বলেন, আমি এসেছি ৫’শ গ্রাম পেঁয়াজ কিনতে। কিন্তু পেঁয়াজের যে দাম তাতে আমি ২৫০ গ্রাম পেঁয়াজ কিনে বাড়ি যাচ্ছি।

বলেন, বাজারের মূল্যবৃদ্ধির কথা কার কাছে বলবো। বাজারতো নিয়ন্ত্রণহীন। সকালে এক দাম বিকালে আরেক দাম। বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। সরকার জোর গলায় বলছেন বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখা হবে, কই আমরাতো তার কোনো নমুনা দেখছি না।

সফর আলী নামের আরেক ভোক্তা বাজারে এসে পেঁয়াজ না কিনে খালি হাতে ব্যাগ নিয়ে বাড়ি যাবার সময় আমার সংবাদকে বলেন, আমরা কোন দেশে বাস করছি সামান্য পেঁয়াজ তাও কিনে খেতে পারছি না। ৭০ টাকার পেঁয়াজ আজ ১৪০ টাকা।

বাজার নিয়ন্ত্রণে কাজ করা সিনিয়র কৃষি বিপণন কর্মকর্তা সুজাত হোসেন খান বলেন, বাজার নিয়ন্ত্রণে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। আমরা প্রতিদিনই বাজার মনিটরিং করছি। কেই সিন্ডিকেট করে ব্যবসা করলে তাদের ছাড় দেওয়া হবে না।

ইএইচ

Link copied!