Amar Sangbad
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৩০ মে, ২০২৪,

বরিশালে সৃষ্টি হবে উন্নয়নের নতুন মাইলফলক

বরিশাল ব্যুরো

বরিশাল ব্যুরো

মে ১৫, ২০২৪, ০৩:৫৯ পিএম


বরিশালে সৃষ্টি হবে উন্নয়নের নতুন মাইলফলক
  • নগরের প্রতিটি এলাকায় উন্নয়ন কাজগুলো শুরু করা হবে
     
  • নগরীর রাস্তাঘাট ও ড্রেনেজ ব্যবস্থায় উন্নতি ঘটবে

নতুন বরিশাল গড়ার অঙ্গীকার নিয়ে জনগণের প্রকৃত সেবক হয়ে টেকসই উন্নয়নের মাধ্যমে অগ্রগতির বরিশাল নগরী গড়তে বিরামহীন কাজ করে চলেছেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আবুল খায়ের আবদুল্লাহ (খোকন সেরনিয়াবাত)।

নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও ড্রেন নির্মাণ কাজকে অগ্রাধিকার দিয়ে তিনি একের পর এক উদ্বোধন করে যাচ্ছেন ভিত্তিপ্রস্তর ফলক। মোটকথা উন্নয়নের নতুন এক মাইলফলক সৃষ্টিতে নগরীতে শুরু হয়েছে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড।

নগর ভবন সূত্র জানিয়েছে, বর্ষা মৌসুমকে মাথায় রেখে গুণগত মান ঠিক রেখে যাতে করে দ্রুত সময়ের মধ্যে উদ্বোধন হওয়া কাজগুলো শেষ করা যায় সে লক্ষ্যে সংশ্লিষ্টদের আরও মনোযোগী হয়ে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন মেয়র।

বেশ কয়েকটি কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে মেয়র আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ খোকন সেরনিয়াবাত বলেছেন, অল্প সময়ের মধ্যে গোটা বরিশাল মহানগরের প্রতিটি এলাকায় উন্নয়ন কাজগুলো শুরু করা হবে। দীর্ঘদিন ধরে বরিশালে কোন রক্ষণাবেক্ষণের কাজ হয়নি, যার কারণে নাগরিকরা আমাকে যে দায়িত্ব দিয়েছে তা বাস্তবায়নে চেষ্টা আমি অব্যাহত রেখেছি।

মেয়র আবুল খায়ের আব্দুল্লাহর বরাত দিয়ে সিটি কর্পোরেশন সূত্র জানিয়েছে, প্রথম ধাপে ২৬৭ কোটি টাকার বেশি ব্যয়ে ১৬১টি রাস্তা সংস্কার ও ৪৭টি ড্রেন নির্মাণ করা হবে। আর প্রথম ধাপে রাস্তার দৈর্ঘ্য ১৩৫ কিলোমিটার আর ড্রেনের দৈর্ঘ্য ৪০ কিলোমিটার।

জানা গেছে, আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ খোকন সেরনিয়াবাত মেয়র হিসেবে শপথ নেয়ার পরপরই ৭৯৭ কোটি টাকা বরাদ্দ পায় বিসিসি। আর গত ৬ মে সেই টাকার অনুকূলে প্রকল্পের প্রথম ধাপের কাজের উদ্বোধন করেন মেয়র। এরপর আরো কয়েকটি সড়ক ও ড্রেন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে।

সূত্রমতে, গুরুত্বপূর্ণ সড়ক সংস্কারের পাশাপাশি জলাবদ্ধতা নিরসনে জোর দেওয়া হয়েছে। যাতে করে আসন্ন বর্ষা মৌসুমে কোথাও যেন জলাবদ্ধতার সৃষ্টি না হয় সে বিষয়ে নজর দেয়া হচ্ছে বেশি।

নগরভবনের পরিচ্ছন্নতা বিভাগ জানিয়েছে, জলাবদ্ধতা এড়াতে ড্রেন পরিষ্কার কার্যক্রম আরও জোরদার করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ১২টি ওয়ার্ডের ড্রেন পরিষ্কার কাজ শেষ হয়েছে। প্রতিদিন ৫০ জন কর্মী কাজ করছেন ড্রেন পরিষ্কার করার জন্য।

বর্ষা মৌসুম শেষ হওয়ার সাথে সাথে পুরো নগরীকে ঢেলে সাজাতে হাত দেয়া হবে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজে এমনটা জানিয়ে বিসিসির একটি সূত্র জানিয়েছে, আপাতত গুরুত্বপূর্ণ সড়ক সংস্কার ও ড্রেন পরিষ্কারের মাধ্যমে জলাবদ্ধতা নিরসনে কাজ করা হলেও বর্ষা মৌসুম শেষ হলেই শুরু হবে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ।

আগামী দিনগুলোতে নগরবাসীর জন্য আরও সুখবর আসবে এমনটা আশাবাদ ব্যক্ত করে মেয়র আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ জানিয়েছেন, অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে নগরীর রাস্তাঘাট ও ড্রেনেজ ব্যবস্থায় উন্নতি ঘটবে। আশাকরি দৃশ্যপটের পরিবর্তন ঘটবে। আমাদের কাজ স্বল্প মেয়াদি ও দীর্ঘমেয়াদি রয়েছে। গুরুত্ব বুঝে সে অনুযায়ী কাজগুলো করা হবে। আমাদের যারা দাতা সংস্থা আছে তাদেরসহ বিভিন্ন পর্যায়ে কথা বলছি। তারা সাহায্য করার জন্য হাত বাড়াচ্ছে। ইনশাল্লাহ উন্নয়ন কাজগুলো অব্যাহত থাকবে।

ইএইচ

Link copied!