community-bank-bangladesh
Amar Sangbad
ঢাকা শুক্রবার, ২১ জুন, ২০২৪,

‘রমজানের পবিত্রতা রক্ষায় দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রন করুন’

মো. মাসুম বিল্লাহ

মার্চ ২০, ২০২৩, ০৬:৪৬ পিএম


‘রমজানের পবিত্রতা রক্ষায় দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রন করুন’

এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী রমজানকে সামনে রেখে একদিকে ইবাদত বন্দেগি করে অপরদিকে জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধি করে অতিরিক্ত মুনাফা আদায় করে। এর প্রতিবাদে, আসন্ন মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের পাগলা ঘোড়ার লাগাম নিয়ন্ত্রন করতে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য সরকারের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ।

সোমবার (২০ মার্চ) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে পার্টির চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভূইয়া এ আহ্বান জানান।

তারা বলেন, যেখানে রমজান মাস উপলক্ষে বিশ্বের বিভিন্ন মুসলিম দেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের মূল্য মানুষের হাতের নাগালে রাখা হয়, সেখানে বাংলাদেশের মতো বৃহৎ মুসলিম দেশে রমজানকে কেন্দ্র করে কয়েক মাস পূর্বেই ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে দ্রব্যমূল্যের ম্যূল্য বৃদ্ধি করে দেয়। দু:খজনক হলেও সত্য সরকার এবিষয়ে কার্যকর কোন পদক্ষেপ গ্রহন কনা।

বিবৃতিতে তারা আরও বলেন, মাহে রমজানকে সামনে রেখে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় গ্যাস-পানির তীব্র সংকট চলছে। সর্বত্র অশ্লীলতা বেহায়পনার সয়লাব। মাদকের ছড়াছড়ি, ঘুষ, দুর্নীতি চরম আকার ধারণ করেছে। মানুষের নিরাপত্তা ও নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। সুদ, ঘুষ ও দুর্নীতির ভয়াবহ সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় ব্যাি তে পরিনত হয়েছে।

নেতৃদ্বয় বলেন, রমজান মাসকে সামনে রেখে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের মূল্যবৃদ্ধিতে জনজীবন চরম দুর্বিষহ করে তুলেছে। এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী রমজানকে সামনে রেখে একদিকে ইবাদত বন্দেগি করে অপরদিকে জিনিসপত্রের মূল্য বৃদ্ধি করে অতিরিক্ত মুনাফা আদায় করে।

এমন ইবাদত আল্লাহর কাছে গ্রহণযোগ্য নয়। তাই মূল্য বৃদ্ধি ও খাদ্যে ভেজাল বন্ধ করতে হবে। মাহে রমজানের সম্মানে সব ধরনের গর্হিত কাজ থেকে বিরত থাকতে ও রাখতে সরকারকে কার্যকরী উদ্যোগ নিতে হবে।

তারা বলেন, যদিও এই মাসের মূল তাৎপর্য হচ্ছে বিলাসিতা পরিহার করে নিজের ভোগ বা চাহিদাকে নিয়ন্ত্রণ করা। তারপরও এ মাসেই ভোগ্যপণ্যের বাজার অস্থির হয়ে উঠেছে। বিশেষ করে ভোজ্যতেল, ছোলা, ডাল, মটর, পেঁয়াজ, মসলা, চিনি ও খেজুরের চাহিদা বাড়ে দ্বিগুণের বেশি। মানুষের অতিরিক্ত চাহিদার সুযোগে নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে ব্যবসায়ীদের একটি শ্রেণি যে যার মতো নিত্যপণ্যের মূল্য বৃদ্ধি করতে থাকে।

তারা সরকারের কাছে দাবি জানান, বাজার মনিটরিং করে সেই সব অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার। একই সাথে ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে বলেন, রমজান মাসে পারস্পরিক সহোযোগিতাপূর্ণ মনোভাব পোষণ করে ব্যবসা করুন। অন্তত রমজান মাসকে ব্যবসার উপলক্ষ না বানানোর।

এআরএস

Link copied!