Amar Sangbad
ঢাকা বুধবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

নবীজি সা. যেভাবে চুলের যত্ন নিতেন

নিজস্ব প্রতিবেদক

অক্টোবর ১, ২০২২, ০৮:০১ পিএম


নবীজি সা. যেভাবে চুলের যত্ন নিতেন

মাথার চুল আল্লহপাকের এক বিশেষ নিয়ামত। এই চুল মানুষকে গরম ও ঠাণ্ডা থেকে রক্ষা করে। আবার এই চুল মানুষকে এক প্রকার সুন্দর অবায়বে উপস্থাপন করে। চুলে মানুষের চেহারার আকর্ষণ সৃষ্টি করে। ইসলাম চুল কাটারও অনুমতি দিয়েছে আবার চুল রাখারও অনুমতি দিয়েছে। স্বয়ং রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সব সময়ই চুল রাখতেন এবং জীবনে কয়েকবার তিনি মুণ্ডনও করেছেন।

রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের চুল কখনো কানের মাঝামাঝি, কানের লতি কিংবা দুই কাঁধ পর্যন্ত লম্বা থাকতো। তার চুল কাঁধ ছাড়িয়ে আরো লম্বা হত বলে জানা যায়। -(তিরমিজি, আশ-শামাইল আল-মুহাম্মাদিয়া: ৪৭-৫০; আবু দাউদ; ৪/৮১; আলবানি, মুখতাসারুশ শামাইল: ৩৪-৩৬)

 

হজরত কাতাদা (রহ.) বলেন, রাসুলুল্লাহ (সা.)-এর চুল কেমন ছিল সে সম্পর্কে আমি আনাস (রা.)-এর কাছে জিজ্ঞাসা করেছিলাম। তিনি বললেন, তিনি অত্যধিক কোঁকড়ানো কিংবা একেবারে সোজা চুলবিশিষ্ট ছিলেন না। -(শামায়েলে তিরমিজি, হাদিস : ২২)

আনাস ইবনে মালিক (রা.) বলেন, রাসুলুল্লাহ (সা.)-এর মাথার চুল দুই কানের মধ্যভাগ পর্যন্ত লম্বা ছিল। (শামায়েলে তিরমিজি, হাদিস : ১৯)


রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, কেউ চুল রাখলে যেন যত্ন করে রাখে। অবশ্য রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মাথায় চিরুনি করা এবং সাজসজ্জা করার ক্ষেত্রে বাড়াবাড়িকে পছন্দ করতেন না। তবে বিরতি দিয়ে মাথায় চিরুনি করতে বলেছেন। -(সুনানে নাসায়ি, হাদিস : ৫২৪০)

 

আবু কাতাদাহর (রা.) একটি বর্ণনা থেকে জানা যায়, তার চুল বড় ছিল। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাকে প্রতিদিন চিরুনি করতে বলতেন। (সুনানে আবি দাউদ, হাদিস : ৪১৫৯)

হজরত আনাস (রা.) থেকে বর্ণিত আছে, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মাথায় অত্যধিক তেল ব্যবহার করতেন। (শামায়েলে তিরমিযি) মাঝে মধ্যে উম্মুল মুমিনীনগণও রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর মাথায় চিরুনি করে দিতেন। (বুখারি) তাই মাথায় তেল ব্যবহার করা সুন্নাত বলার অনুমতি রয়েছে।

 

আনাস বিন মালিক (রা.) বলেন, রাসুলুল্লাহ (সা.) মাথায় অধিক পরিমাণে তেল দিতেন, দাড়ি বিন্যস্ত করতেন এবং বেশির ভাগ সময় মাথায় কাপড় বাঁধতেন। এমন তাঁর কাপড় ছিল তেল ব্যবসায়ীর কাপড়ের মতো। (শামায়েলে তিরমিজি, হাদিস : ৩৩)

আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) অজু করতে, জুতা পরতে এবং চুল আঁচড়াতে যথাসম্ভব ডান দিক থেকে করা পছন্দ করতেন। (সুনানে নাসায়ি, হাদিস : ৫২৪১)

রাসুলুল্লাহ (সা.) পরিপাটি থাকা পছন্দ করতেন, কাউকে এলোমেলো দেখলে তাকে সতর্ক করতেন। আতা ইবনে ইয়াসার (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) মসজিদে ছিলেন। তখন এক ব্যক্তি এলোমেলো চুল ও দাড়ি নিয়ে প্রবেশ করল। রাসুলুল্লাহ (সা.) তাকে বের করে দিতে ইশারা করলেন। যেন তিনি তাকে দাড়ি ও চুল ঠিক করার নির্দেশ দিলেন। লোকটি তা-ই করল এবং ফিরে এলো। তখন রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, শয়তানের মতো এলোমেলো চুল নিয়ে আসার চেয়ে এটাই কি উত্তম নয়? (মুয়াত্তায়ে মালিক, হাদিস : ১৪৯৪)

 

পুরুষের চুল রাখা ও কাটার ব্যাপারে ইসলামী শরিয়ত তিনটি পদ্ধতি নির্ধারণ করে দিয়েছে।

এক. বাবরি চুল রাখা। 
দুই. মুণ্ডিয়ে ফেলা। ইসলামের দৃষ্টিতে মাথা মুণ্ডিয়ে ফেলাও সুন্নত। 
তিন. সব চুল সমান করে কাটা।

(ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়া : ৫/১৪৯, ফাতাওয়ায়ে ফকিহুল মিল্লাত : ১২/৪৩)

 

আমারসংবাদ/আরইউ

Link copied!