Amar Sangbad
ঢাকা বুধবার, ২৫ মে, ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

ভারতে ‘আজীবন সম্মাননা’য় ভূষিত আলমগীর-রুনা লায়লা

বিনোদন প্রতিবেদক

বিনোদন প্রতিবেদক

মে ১৫, ২০২২, ০১:০২ এএম


ভারতে ‘আজীবন সম্মাননা’য় ভূষিত আলমগীর-রুনা লায়লা

বাংলাদেশের সিনেমার গর্ব অভিনেতা, প্রযোজক, পরিচালক, চলচ্চিত্র পরিবারের অভিভাবক নায়ক আলমগীর ও বাংলাদেশের সংগীতাঙ্গনের তথা উপমহাদেশের প্রখ্যাত সংগীতশিল্পী রুনা লায়লা একসঙ্গে একই মঞ্চে ‘আজীবন সম্মাননা’য় ভূষিত হয়েছেন।

গতকাল সন্ধ্যায় ভারতের কলকাতার নজরুল মঞ্চে ‘টেলিসিনে অ্যাওয়ার্ড’-এর ১৯তম আসরে আলমগীর-রুনা লায়লার হাতে ‘আজীবন সম্মাননা’ তুলে দেয়া হয়। মুঠোফোনে কলকাতা থেকে ‘আজীবন সম্মাননা’ 

প্রাপ্তি প্রসঙ্গে আলমগীর বলেন, ‘এর আগেও আমি কলকাতা থেকে উত্তম কুমার অ্যাওয়ার্ডসহ আরও বেশকিছু সম্মাননায় ভূষিত হয়েছি। এটা সত্যি, সম্মাননা প্রাপ্তিতে আমি খুব বেশি উচ্ছ্বসিত হইনা বা সম্মাননা প্রাপ্তির পর খুব বেশি ভালো লাগার প্রকাশ ঘটে না বা প্রকাশ করতে পারি না। 

তবে অবশ্যই সম্মাননা পেলে ভালো লাগে। কলকাতায় আমাকে এবং রুনাকে যারা আজীবন সম্মাননায় ভূষিত করেছেন, তাদেরকে ধন্যবাদ। নিঃসন্দেহে একটু বেশিই ভালো লাগার এ কারণে যে, আমি এবং রুনা একসঙ্গে একই মঞ্চে এই আজীবন সম্মাননা পেয়েছি।’ 

রুনা লায়লা বলেন, ‘এই সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানটি আমি মনে করি দুই বাংলার শিল্পীদের মেলবন্ধনের একটি অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে দুই বাংলার অনেক শিল্পীই সম্মাননা পেয়েছেন। সবার জন্যই শুভকামনা, ভালোবাসা। আমি এর আগে চ্যানেল আই আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে একই মঞ্চে আজীবন সম্মাননায় ভূষিত হয়েছিলাম। যে অনুষ্ঠানে শ্রদ্ধেয় সন্ধ্যা মুখার্জিও উপস্থিত ছিলেন। 

তো এবার যেহেতু আমরা দুজনই একসঙ্গে একই মঞ্চে আজীবন সম্মাননা পেলাম, এটা আসলেই অনেক সম্মানের, আনন্দের এবং একটু অন্যরকম ভালো লাগার তো বটেই। আয়োজকদের ধন্যবাদ। আমাদের জন্য দোয়া করবেন আল্লাহ যেন সুস্থ রাখেন, ভালো রাখেন।’ 

আলমগীর-রুনা লায়লা গত ১৩ মে কলকাতা পৌঁছান। ১৪ মে সন্ধ্যায় ‘টেলিসিনে’ অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। এর আগে একই অনুষ্ঠানে প্রয়াত জীবন্ত কিংবদন্তি নায়ক রাজ রাজ্জাক, নায়িকা ববিতাও আজীবন সম্মাননায় ভূষিত হন। আলমগীর পরিচালিত সর্বশেষ সিনেমা হচ্ছে ‘একটি সিনেমার গল্প’। 

এ সিনেমার মধ্য দিয়েই একজন সুরকার হিসেবে রুনা লায়লার অভিষেক হয়। অভিষেকেই একজন সুরকার হিসেবে তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন। রুনা লায়লার সুরে এই সিনেমায় গান গেয়েছিলেন আঁখি আলমগীর। গানটির কথা ছিল ‘গল্পকথার ওই কল্পলোকে জানি একদিন চলে যাব’।

গানটি লিখেছেন গাজী মাজহারুল আনোয়ার। এই সিনেমাতে গান গেয়ে আঁখি আলমগীর গায়িকা হিসেবে প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হন।