Amar Sangbad
ঢাকা সোমবার, ০৪ মার্চ, ২০২৪,

টানা ব্যর্থতায় কড়া সমালোচনার মুখে ক্লপ

ক্রীড়া ডেস্ক

ক্রীড়া ডেস্ক

জানুয়ারি ২৯, ২০২৩, ০৬:১৫ পিএম


টানা ব্যর্থতায় কড়া সমালোচনার মুখে ক্লপ

মৌসুমের শুরু থেকে ব্যর্থতার মাঝে ঘুরপাক খাচ্ছে লিভারপুল। একের পর এক হোঁচটে প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা লড়াই থেকে ছিটকে পড়েছে তারা। দলের এমন নাজেহাল অবস্থায় কড়া সমালোচনার মুখে পড়েছেন কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপও। এত এত নেতিবাচক মন্তব্যে এই জার্মান বেশ বিরক্ত। বললেন, আচমকাই তো আমি আর খারাপ কোচ হয়ে যাইনি। প্রিমিয়ার লিগের গত আসরে শেষ দিন পর্যন্ত শিরোপা আশায় ছিল লিভারপুল। ম্যানচেস্টার সিটিকে রেখেছিল কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে। শেষ পর্যন্ত ১ পয়েন্ট পিছিয়ে থেকে রানার্সআপ হওয়া দলটিই ২০২২-২৩ মৌসুমে কক্ষচ্যুত হয়ে পড়েছে।

লিগে গত তিন রাউন্ডে টানা দুটি হারের পর সবশেষ ম্যাচে লিভারপুল ঘরের মাঠে ড্র করে চেলসির সঙ্গে। ১৯ ম্যাচে ২৯ পয়েন্ট নিয়ে তারা এখন লিগ টেবিলের নবম স্থানে। শীর্ষ চারের থেকে পিছিয়ে ১০ পয়েন্টে। আর শীর্ষে থাকা আর্সেনাল তাদের চেয়ে এগিয়ে ২১ পয়েন্টে। গতবার মৌসুম শেষের দুই ম্যাচ বাকি থাকতেও ‘কোয়াড্রপল’ জয়ের সম্ভাবনাই ছিল লিভারপুল। শেষ পর্যন্ত যদিও দুটি শিরোপা জিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাদেরকে। সেই তারাই এবার বড্ড ছন্নছাড়া।

প্রিমিয়ার লিগে টানা পিছিয়ে পড়ার মাঝে ছিটকে গেছে লিগ কাপ থেকেও। সামনে এবার চ্যালেঞ্জ এফএ কাপে টিকে থাকার। প্রতিযোগিতাটির চতুর্থ রাউন্ডে রোববার ব্রাইটন অ্যান্ড হোভ অ্যালবিওনের মাঠে নামবে লিভারপুল। গত ১৪ জানুয়ারি, লিগ ম্যাচে এই দলের মাঠেই ৩-০ গোলের ভরাডুবি হয়েছিল ক্লপের দলের। দল ও তাকে নিয়ে চলা সমালোচনা প্রসঙ্গে ব্রাইটনের বিপক্ষে নতুন লড়াইয়ের আগের দিন ক্লপের কণ্ঠে ঝরল ক্ষোভ। ক্লপ বছেলেন, আমি তো রাতারাতি খারাপ কোচ হয়ে যাইনি। মানুষ যতটা বলে হয়তো ততটা ভালো আমি কখনও ছিলাম না, আবার কিছু মানুষ যতটা খারাপ ভাবে আসলে আমি ততটাও খারাপ কোচ নই।

২০১৫ সালে লিভারপুলে যোগ দেওয়ার পর এখানে ২০১৯ চ্যাম্পিয়ন্স লিগসহ সম্ভাব্য সব শিরোপা জিতেছেন ক্লপ। তার হাত ধরেই ৩০ বছরের খরা কাটিয়ে ২০২১ সালে ইংল্যান্ডের শীর্ষ ফুটবলের ট্রফি জেতে দলটি। গত এপ্রিলে অ্যানফিল্ডের ক্লাবটির সঙ্গে ২০২৬ পর্যন্ত চুক্তি নবায়ন করা ক্লপের কণ্ঠেও উঠে এলো গত মৌসুমে দলের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের কথা, একই সঙ্গে এবারের হতাশার কথাও। গত বছরটা ছিল চরম রোমাঞ্চকর, প্রত্যাশার চেয়েও অনেক বেশি ছিল; কারণ চারটি ফাইনালে ওঠার কথা কে ভাবে। সেই তুলনায় এই মৌসুমটা যে কঠিন হবে, সেটা তো স্পষ্টই ছিল। তবে চোট সমস্যা কম থাকলে আমরা সহজেই লিগে আরও ৪-৫ পয়েন্ট বেশি পেতাম।

এবি

Link copied!