community-bank-bangladesh
Amar Sangbad
ঢাকা শনিবার, ২২ জুন, ২০২৪,

প্রেসিডেন্ট রাইসিসহ ৯ জনের মৃত্যুতে শোকে স্তব্ধ ইরান

কোনদিকে মধ্যপ্রাচ্যের রাজনীতি

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

মে ২১, ২০২৪, ১২:২৭ এএম


কোনদিকে মধ্যপ্রাচ্যের রাজনীতি
  • প্রজাতন্ত্রের নেতৃত্ব নিয়ে দুশ্চিন্তা না করার পরামর্শ খামেনির, ৫ দিনের রাষ্ট্রীয় শোক
  • সরকারি কাজে সামান্যতম বিচ্যুতি হবে না
  • পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে আলী বাকেরি
  • ৫০ দিনের মধ্যে নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন

হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রেসিডেন্ট সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রাইসি ও দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দুল্লাহিয়ানসহ ৯ জন নিহত হয়েছেন। গত রোববার হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হওয়ার খবর জানাজানির পর গতকাল দেশটির সরকার ৯ সফরসঙ্গীসহ প্রেসিডেন্ট রাইসির নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছে।

আকস্মিক এই মৃত্যুর ঘটনায় বিশ্বজুড়ে চলছে নানা বিশ্লেষণ। ওই হেলিকপ্টারটি সত্যি সত্যি দুর্ঘটনায় পতিত হয়েছে নাকি এর পেছনে কোনো ষড়যন্ত্র রয়েছে তা নিয়েও প্রশ্ন তুলছে বিশ্ববাসী। প্রেসিডেন্ট সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুতে মধ্যপ্রাচ্যের রাজনীতিতে কী ধরনের প্রভাব পড়তে পারে সেসব নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। ইসরাইল ও ইরানের মধ্যে সম্প্রতি উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছিল, পাল্টাপাল্টি যুদ্ধাবস্থাও তৈরি হয়েছিল, ঠিক এরই মধ্যে ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যু দেশটি বড় ধরনের ধাক্কা খেল। তবে ইরানের মন্ত্রিসভা বলছে, রাইসির মৃত্যুতে সরকারি কাজে বিন্দুমাত্র ব্যত্যয় ঘটবে না, তার অসমাপ্ত কাজগুলো এগিয়ে নেয়া হবে। একইভাবে দেশটির সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনী বলেছেন, হেলিকপ্টার বিধ্বস্তের ঘটনায় ইরানের রাষ্ট্রীয় কার্যক্রমে কোনো বিঘ্ন ঘটবে না। পাশাপাশি দেশটির জনগণের প্রতি সমবেদনা জানান তিনি। ইতোমধ্যে দেশটিতে নিয়ম অনুযায়ী অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট নিযুক্ত হয়েছে। আগামী ৫০ দিনের মধ্যে নির্বাচনের মাধ্যমে নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করবে দেশটি।   

এদিকে, ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টার দুর্ঘটনাকে অনেকেই রহস্যজনক বলে মনে করছেন। রাইসির মৃৃত্যু নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় তোলপাড় শুরু হয় আন্তর্জাতিক মহলগুলোতেও। দুর্ঘটনার নেপথ্যের কারণসহ মধ্যপ্রাচ্যের পরিস্থিতি নিয়েও বেড়ে চলেছে শঙ্কা। অনেকেই ধারণা করছেন, মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে চলমান সংঘাতে ব্যাপক প্রভাব ফেলবে ইব্রাহিম রাইসি ও হোসেইন আমির আব্দুল্লাহিয়ানের মৃত্যু। এছাড়াও গতকাল সোমবার মার্কিন সংবাদ প্রকাশনা ফরেন পলিসি বলেছে, রাইসির মৃত্যুর ঘটনা মধ্যপ্রাচ্যকে আঞ্চলিক যুদ্ধের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যেতে পারে। গেলো কয়েক দশক ধরে মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে সক্রিয় কয়েকটি দেশ ও সংগঠনকে সামরিক সহায়তা দিয়ে আসছে তেহরান। বিশেষ করে লেবানন, সিরিয়া, ইরাক, ইয়েমেন, বাহরাইন ও ফিলিস্তিন অন্যতম। 

বিশ্লেষকরা ধারণা করছেন, রাইসির মৃত্যু প্রভাব ফেলতে পারে দেশটির পরমাণু কর্মসূচিতেও। রাইসির মৃত্যু শুধু মধ্যপ্রাচ্য নয় বরং প্রভাব ফেলবে মধ্য এশিয়া ও ইউরোপীয় ভূরাজনীতিতেও। বিশেষ করে ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধে রুশ বাহিনীকে যে বিপুল পরিমাণ ড্রোন ও সমরাস্ত্র সরবরাহ করেছিল তেহরান এখন সেই পদক্ষেপ কতটা ধারাবাহিক থাকবে সে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে অনেক মহলে। 

পালিত হবে পাঁচ দিনের জাতীয় শোক : হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রেসিডেন্ট সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রাইসি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দুল্লাহিয়ানসহ তাদের সফরসঙ্গীদের নিহতের ঘটনায় শোকবার্তা দিয়েছেন সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনী। তিনি শোকবার্তায় বলেছেন, অত্যন্ত দুঃখ ভারাক্রান্ত মনে জননন্দিত, যোগ্য ও পরিশ্রমী প্রেসিডেন্ট হুজ্জাতুল ইসলাম সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রাইসি ও তার সফরসঙ্গীদের শাহাদাতের তিক্ত খবরটি পেয়েছি। এই দুঃখজনক ঘটনাটি ঘটেছে যখন তিনি (রাইসি) সেবামূলক কাজে ব্যস্ত ছিলেন। এই সম্মানিত ও নিঃস্বার্থ ব্যক্তির নানা দায়িত্ব পালনের পুরো সময়টা সম্পূর্ণরূপে জনগণ ও ইসলামের সেবায় নিরলস প্রচেষ্টায় অতিবাহিত হয়েছে। প্রেসিডেন্ট থাকাকালে এবং প্রেসিডেন্ট হওয়ার আগেও এটা একই রকম ছিল। প্রিয় রাইসি ক্লান্তি কি জিনিস তা যেন জানতেনই না। সর্বোচ্চ নেতা আরও বলেন, তার কাছে মানুষের কল্যাণ ও সন্তুষ্টি সবকিছুর ওপর অগ্রাধিকার পেতো। এটা আল্লাহর সন্তুষ্টিরই ইঙ্গিতবাহী, তাই কিছু অসাধু মানুষের পক্ষ থেকে অকৃতজ্ঞতা এবং উপহাস তার জন্য পীড়াদায়ক হলেও এসব কিছুই তার দিনরাতের কাজ-কর্ম এবং উন্নয়ন প্রচেষ্টার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি। আয়াতুল্লাহ খামেনী বলেন, এই কষ্টদায়ক ঘটনায় তাবরিজের জুমার নামাজের ইমাম হুজ্জাতুল ইসলাম হাশেম, সংগ্রামী ও সদাসচেষ্ট পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির আব্দুল্লাহিয়ান এবং তাদের অন্য সফরসঙ্গীরা শহীদ হয়েছেন। এই ঘটনায় আমি পাঁচ দিনের সর্বজনীন শোক ঘোষণা করছি এবং ইরানের প্রিয় জনগণের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি। 

হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষ উদ্ধার : ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রেসিডেন্ট আয়াতুল্লাহ সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রাইসি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির-আব্দুল্লাহিয়ান, পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশের গভর্নর মালেক রাহমাতি এবং এই প্রদেশে ইরানের সর্বোচ্চ নেতার মুখপাত্র আয়াতুল্লাহ মোহাম্মদ আলী আলে-হাশেম হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন। দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় চরম দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার মধ্যে প্রায় ১৫ ঘণ্টা অনুসন্ধান কাজ চালানোর পর গতকাল সোমবার সকাল ৭টা নাগাদ ইরানের প্রেসিডেন্ট সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারটির ধ্বংসাবশেষের সন্ধান পাওয়া য়ায়। প্রাপ্ত ছবি ও ভিডিওতে দেখা যায়, ঘন পাহাড়ি জঙ্গলে হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষ পড়ে রয়েছে। হেলিকপ্টারের লেজের একটি অংশ ছাড়া বাকি পুরো অংশ আগুনে পুড়ে ভস্মীভূত হয়েছে।

পূর্ব আজারবাইজানের জোলফা এলাকার কাছে দুর্গম পাহাড়ে প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয়। অন্য দুটি হেলিকপ্টার নিরাপদে গন্তব্যে পৌঁছায়। বিধ্বস্ত হওয়া ওই হেলিকপ্টারে প্রেসিডেন্ট রাইসি ছাড়াও পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির-আব্দুল্লাহিয়ান, পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশের গভর্নর মালেক রাহমাতি এবং এই প্রদেশে ইরানের সর্বোচ্চ নেতার মুখপাত্র আয়াতুল্লাহ মোহাম্মদ আলী আলে-হাশেম ছিলেন। হেলিকপ্টারের মোট ৯ আরোহীর বাকি পাঁচ আরোহী হলেন— ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাইয়্যেদ মেহদি মুসাভি (প্রেসিডেন্টের দেহরক্ষী), আনসারুল মাহদি বাহিনীর এক সদস্য (পরিচয় জানা যায়নি), পাইলট (পরিচয় জানা যায়নি),  কো-পাইলট (পরিচয় জানা যায়নি),  ক্রু (পরিচয় জানা যায়নি)। 

নতুন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে আলী বাকেরি কানি : ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটির প্রধান হিসেবে উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলী বাকেরি কানিকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। গত রোববার ইরানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় আজারবাইজান প্রদেশের পার্বত্যাঞ্চলে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আবদুল্লাহিয়ান শহীদ হওয়ার পর উপরাষ্ট্রমন্ত্রী আলী বাকেরি কানিকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটির প্রধান হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হলো। ইরান সরকারের মন্ত্রিসভা তার এই নিয়োগ অনুমোদন করেছে।  ইরান সরকারের মুখপাত্র আলী বাহাদুরি গতকাল এই ঘোষণা দেন। 

জরুরি বৈঠকে ইরানের মন্ত্রিসভা, ৫০ দিনের মধ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন : ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রেসিডেন্ট হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় শাহাদাত বরণ করার পর দেশের মন্ত্রিপরিষদ জরুরি বৈঠকে বসেছে। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেছেন ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মোখবের। এক বিবৃতিতে মন্ত্রিসভা গভীর শোক প্রকাশ করে সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনীর কাছে বার্তা পাঠিয়েছে। এই বার্তায় মন্ত্রিসভা প্রেসিডেন্ট রাইসির পথকে অনুসরণ করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছে এবং তার অসমাপ্ত কাজকে এগিয়ে নেয়ার পূর্ণ আশ্বাস দিয়েছে। মন্ত্রিসভা ওই শোকবার্তায় পরিষ্কার করে বলেছে, সংকটজনক সময়ে দেশের প্রশাসনিক কাজে বিন্দুমাত্র বিঘ্ন ঘটার কোনো সুযোগ তারা দেবে না। 

প্রজাতন্ত্রের নেতৃত্ব নিয়ে দুশ্চিন্তা না করার পরামর্শ খামেনির : হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দুল্লাহিয়ান নিহত হওয়ার ঘটনায় উদ্বিঘ্ন না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন দেশটির সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি। তিনি বলেছেন, ইসলামি প্রজাতন্ত্রের নেতৃত্ব নিয়ে দুশ্চিন্তা করার কিছু নেই। তিনি আরও বলেন, প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দুল্লাহিয়ানের মৃত্যু দেশের জন্য অনেক বড় ক্ষতি; কিন্তু তাদের মৃত্যু দেশের কাজে কোনো ব্যাঘাত ঘটবে না।

সরকারি কাজে সামান্যতম বিচ্যুতি হবে না, বলছে মন্ত্রিসভা : হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসিসহ সব আরোহী নিহত হওয়ার পর ইরান সরকার জানিয়েছে, দেশের সরকারি কাজে সামান্যতম বিচ্যুতি হবে না। রাইসি ক্লান্তিহীনভাবে যেভাবে দেশ পরিচালনা করতেন, সেভাবেই তারা এগিয়ে যাবেন। এতে সামান্যতম বিচ্যুতি হবে না।
দুর্ঘটনার পরও এক ঘণ্টা বেঁচে ছিলেন ইমাম : বিধ্বস্ত হওয়া ইরানি প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারটিতে তিনজন কর্মকর্তা, একজন ইমাম, ফ্লাইট ও নিরাপত্তা দলের সদস্যসহ ৯ জন ছিলেন। ইরানের সশস্ত্রবাহিনী এআরজিসি পরিচালিত মিডিয়া আউটলেট সেপাহ জানিয়েছে, হেলিকপ্টারে ইরানি প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আবদুল্লাহিয়ান, পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশের গভর্নর মালেক রহমাতি, তাবরিজের জুমার নামাজ ইমাম মোহাম্মদ আলী আলেহাশেমের পাশাপাশি একজন পাইলট, কো-পাইলট, ক্রুপ্রধান, নিরাপত্তা প্রধান এবং অন্য একজন দেহরক্ষী ছিলেন বিধ্বস্ত হেলিকপ্টারটিতে। হেলিকপ্টার আরোহীদের মধ্যে ছিলেন মোহাম্মদ আলী আল-হাশেম। যিনি তাবরিজের জুমার ইমাম ছিলেন। এছাড়াও তিনি ছিলেন সর্বোচ্চ নেতার প্রতিনিধি। ইরানের ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট এজেন্সির প্রধান মোহাম্মদ নামির মতে, আল হাশেম দুর্ঘটনার পরও পুরো একটি ঘণ্টা বেঁচে ছিলেন। এমনকি তিনি প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ে যোগাযোগেরও চেষ্টা করেছিলেন।

রাইসির জানাজা ও দাফন কোথায় : হেলিকপ্টার বিধ্বস্তে নিহত ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির জানাজা ও দাফনের দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। আগামীকাল বুধবার তাবরিজে এসব আনুষ্ঠানিতকা সম্পন্ন হবে বলে দেশটির সংবাদমাধ্যম তাসনিম জানিয়েছে।   ইরানের পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশের কর্মকর্তাদের বরাতে তাসনিম আরও জানিয়েছে, প্রেসিডেন্টের পাশাপাশি তার নিহত সফরসঙ্গীদেরও তাবরিজে দাফন করা হবে।

ইরানের প্রেসিডেন্ট নিহত, যা বলছে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর : ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দুল্লাহিয়ানের মৃত্যুর বিষয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের একজন মুখপাত্র বলেছেন, আমরা ইরানের প্রেসিডেন্ট ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বহনকারী একটি হেলিকপ্টার ইরানে সম্ভাব্য হার্ড ল্যান্ডিংয়ের রিপোর্টগুলো ঘনিষ্ঠভাবে পর্যবেক্ষণ করছি। এই মুহূর্তে আমরা আর কোনো মন্তব্য করতে চাই না। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন মার্কিন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে দুর্ঘটনার বিষয়ে অবহিত করা হয়েছে।

প্রেসিডেন্ট রাইসি ও তার সঙ্গীদের লাশ উদ্ধার : হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দুল্লাহিয়ান। পরে দুর্ঘটনাস্থল থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এর মাধ্যমে উদ্ধার অভিযানও সমাপ্ত করা হয়েছে। ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি সোমবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।
ইরানের অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে পুতিনের ফোনালাপ : ইরানের অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট মোহাম্মাদ মোখবারের সঙ্গে কথা বলেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। দুই নেতা রুশ-ইরান সম্পর্ক আরও জোরদার করতে তাদের পারস্পরিক অভিপ্রায়ের ওপর জোর দিয়েছেন বলে ক্রেমলিন জানিয়েছে। রুশ বার্তা সংস্থা তাস জানিয়েছে, রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভও বলেছেন, ইরানের সঙ্গে রাশিয়া তার সম্পর্ক গভীর করা অব্যাহত রাখবে এবং তেহরানের সঙ্গে আগের চুক্তিগুলো বাস্তবায়িত করা হবে। 

বিশ্ব নেতাদের প্রতিক্রিয়া : ইরানের প্রেসিডেন্ট সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় পড়ার খবর প্রচারিত হওয়ার পর জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসসহ বিশ্ব নেতারা এ ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। তারা এ দুর্ঘটনার খবরে উদ্বেগ প্রকাশ করার পাশাপাশ ইরানের সরকার ও জনগণের প্রতি সংহতি প্রকাশ করেছেন।
জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের মুখপাত্র স্টেফান ডুজারিচ বলেছেন, মহাসচিব অত্যন্ত উদ্বেগের সঙ্গে প্রেসিডেন্ট রায়িসির হেলিকপ্টার উদ্ধারের খোঁজখবর নিচ্ছেন। সেই সঙ্গে রাইসি ও তার সহযাত্রীদের জীবিত উদ্ধার হওয়ার আশা প্রকাশ করেছেন তিনি। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন মস্কোয় নিযুক্ত ইরানি রাষ্ট্রদূত কাজেম জালালির সঙ্গে বৈঠক করেছেন। তিনি প্রেসিডেন্ট রাইসির দুর্ঘটনাকবলিত হেলিকপ্টারের সন্ধান করতে উদ্ধারকারী দল পাঠাতে রাশিয়ার প্রস্তুতি ঘোষণা করেছেন। এদিকে রাশিয়া দুটি উদ্ধারকারী বিমান, হেলিকপ্টার এবং পাহাড়ি এলাকায় উদ্ধারকাজে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ৫০ জন পেশাদার  উদ্ধারকারী পাঠিয়েছে।

ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুকে শোকে মুহ্যমান গোটা বিশ্ব। বিভিন্ন দেশের পক্ষ থেকে শোকবার্তা পাঠিয়েছেন বিশ্বনেতারা। চীনও এর ব্যতিক্রম করেনি। বেইজিংয়ের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, রাইসি ও আমির আবদুল্লাহিয়ানের মৃত্যুতে শোক জানিয়ে ইরানের প্রতি সমবেদনা বার্তা পাঠিয়েছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। মন্ত্রণালয় জানায়, শি বলেন, রাইসি ইরানের শান্তি ও স্থিতিশীলতায় ব্যাপক অবদান রেখেছেন এবং চীন-ইরান কৌশলগত অংশীদারিত্ব সুসংহত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। 

আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার দুর্ঘটনার শিকার হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, উদ্ধার তৎপরতায় সহযোগিতা করতে বাকু প্রস্তুত রয়েছে।

আর্মেনিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে এক এক্স বার্তায় লিখেছে— আমরা প্রেসিডেন্ট রাইসি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল্লাহিয়ানসহ হেলিকপ্টারের সব যাত্রীর জন্য প্রার্থনা করছি। ইরানের উত্তরাঞ্চলে যে অনুসন্ধান অভিযান চলছে তাতে অংশগ্রহণের ব্যাপারে আমরা নিজেদের প্রস্তুতি ঘোষণা করছি।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান এ ঘটনায় সমবেদনা প্রকাশ করে বলেছেন, তিনি গভীরভাবে উদ্ধার তৎপরতা পর্যবেক্ষণ করছেন। এছাড়া, তুরস্কের জরুরি উদ্ধার ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ গত রোববার রাতেই ইরানে একটি উদ্ধারকারী দল পাঠিয়েছে। পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট আসিফ আলী জারাদারি, প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ ও পার্লামেন্ট স্পিকার সরদার আইয়াজ সাদিক আলাদা আলাদা বার্তায় ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসি ও তার সহযাত্রীদের বহনকারী হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় পড়ার খবরে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তারা ইরানি জনগণের প্রতি সংহতি জানিয়েছেন।
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজের অফিসিয়াল এক্স পেজে দেয়া এক পোস্টে লিখেছেন, আমরা এই দুঃসময়ে ইরানি জনগণের প্রতি সংহতি প্রকাশ করছি এবং প্রেসিডেন্ট ও তার সহযাত্রীদের মঙ্গল কামনায় প্রার্থনা করছি। তালেবান নেতৃত্বাধীন আফগানিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তার টেলিগ্রাম চ্যানেলে লিখেছে— এই মন্ত্রণালয় ইরানের প্রেসিডেন্ট ও তার সহযাত্রীদের খোঁজে চলমান তল্লাশি অভিযান পর্যবেক্ষণে রেখেছে। ইরাকের প্রেসিডেন্ট আব্দুল লতিফ রশিদ এ ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, তিনি বিষয়টি নিয়ে বাগদাদে নিযুক্ত ইরানি রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে কথা বলেছেন।

ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় পড়ার খবরে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে সৌদি আরব। দেশটি এ ব্যাপারে ইরানকে সহযোগিতা করার প্রস্তাব দিয়েছে। আরও যেসব দেশের পক্ষ থেকে এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে ইরানি জনগণের প্রতি সংহতি প্রকাশ করা হয়েছে সেসব দেশের মধ্যে রয়েছে— মিসর, লেবানন, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ওমান, জর্দান, কাতার, কুয়েত, ইয়েমেন, ভেনিজুয়েলা, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ইতালি ইত্যাদি।

ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস ও ইসলামি জিহাদ আলাদা আলাদা বিবৃতিতে ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার দুর্ঘটনার ব্যাপারে গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছে। হামাসের পক্ষ থেকে ইরানের সরকার ও জনগণের পাশাপাশি সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনীর প্রতি সংহতি প্রকাশ করা হয়েছে।
 

Link copied!