Amar Sangbad
ঢাকা সোমবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

ব্যতিক্রম কাজের উদ্যোগে লাবিবা

রহমতউল্যাহ

রহমতউল্যাহ

মে ২২, ২০২২, ০৭:২৭ পিএম


ব্যতিক্রম কাজের উদ্যোগে লাবিবা

ব্যতিক্রম নানা কাজের উদ্যোগ নিয়ে প্রসংশা কুড়িয়েছেন  ইন্টারন্যাশনাল ইয়ুথ চেঞ্জ মেকারের কো-ফাউন্ডার এবং প্রেসিডেন্ট লাবিবা সুলতানা । ইউনিসেফে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবেও কাজ করার অভিজ্ঞতাও রয়েছে অনেক দিনের। তাছাড়া ২০২১ সালে কনফারেন্স অব ইয়ুথে কনভেনার হিসেবে কাজ করেছেন তিনি ।

 বর্তমানে লাবিবা গভর্নমেন্ট কলেজ অব অ্যাপ্লাইড হিউম্যান সায়েন্সের শিক্ষার্থী । ছোটবেলা থেকেই বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী ছিলেন।লাবিবা শৈশবে আবৃত্তি, ছবি আঁকা, উপস্থিত বক্তৃতা করতেন। স্কুল পর্যায়ে পেয়েছেন পুরস্কারও।

ইউনিসেফে স্বেচ্ছাসেবকের কাজ সম্পর্কে জানতে চাইলে লাবিবা বলেন, 'ইউনিসেফের মাধ্যমে অসহায় মানুষের খুব কাছে যেতে পেরেছি। প্রচুর যোগাযোগ তৈরি করতে পেরেছি; যা আমাকে আজও নিখুঁতভাবে কার্যক্ষেত্রে চলতে সহায়তা করে। একসময় ভাবি, নিজ থেকে কিছু করার। এ ভাবনা থেকেই চেঞ্জ মেকারের সঙ্গে যাত্রা। চেঞ্জ মেকার হচ্ছে একজন বা একাধিক ব্যক্তি যিনি বা যাঁরা সমাজ, রাষ্ট্র, দেশ এবং বিশ্বে ইতিবাচক পরিবর্তন নিয়ে আসেন বা এর জন্য কাজ করেন। মূলত তাঁরাই চেঞ্জ মেকার, যাঁরা ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে সক্ষম এবং সফল।

' লাবিবা ইন্টারন্যাশনাল ইয়ুথ চেঞ্জ মেকারের কো-ফাউন্ডার এবং প্রেসিডেন্ট। ইন্টারন্যাশনাল ইয়ুথ চেঞ্জ মেকারের কিছু উল্লেখযোগ্য কাজ হচ্ছে সহমর্মিতার হাত ইভেন্ট, শিশুর চোখে নিজের শৈশব, প্রজেক্ট অঙ্গনা, ক্লাইমেট সেভ চ্যালেঞ্জ, শীতবস্ত্র বিতরণ ইত্যাদি।

এসব প্রজেক্টের মাধ্যমে সমাজের অসংখ্য শিশু, নারী, পুরুষ উপকৃত হয়েছে। অটিজম নিয়েও কাজ করতে চান লাবিবা। পাশাপাশি উদ্যোক্তাও হতে চান। তবে দিন শেষে অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফোটানোতেই তাঁর বড় তৃপ্তি।

Link copied!